শেয়ারবাজার

২০১৬ সালে বিদেশী পোর্টফোলিও বিনিয়োগ

সবচেয়ে বেশি কমেছে বাটা সু ও ইসলামী ব্যাংকে

আব্বাস উদ্দিন নয়ন | ২১:২৭:০০ মিনিট, জানুয়ারি ১২, ২০১৭

দেশের শেয়ারবাজারে বিদেশীদের পোর্টফোলিও বিনিয়োগ বাড়ছে। ২০১৬ সালের প্রথম ১১ মাসে আগের বছরের তুলনায় দেশের তালিকাভুক্ত কোম্পানিগুলোয় বিদেশীদের বিনিয়োগ বেড়েছে ৭ হাজার ২৩১ কোটি টাকা। মোট বিদেশী পোর্টফোলিও বিনিয়োগে শীর্ষ ২০ কোম্পানির মধ্যে ২০১৬ সালে ১২টিতে নিজেদের শেয়ার বাড়িয়েছেন বিদেশীরা। অন্যদিকে আটটি কোম্পানিতে তাদের বিনিয়োগ কমেছে। সবচেয়ে বেশি কমেছে বাটা সু ও ইসলামী ব্যাংকে। এক বছরের ব্যবধানে দুটি কোম্পানিতে বিদেশীদের পোর্টফোলিও বিনিয়োগ যথাক্রমে ৪৬ দশমিক ১৩ ও ৪২ দশমিক ৪৭ শতাংশ কমেছে।

ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) তথ্য পর্যালোচনায় দেখা যায়, ২০১৫ সালের ডিসেম্বর শেষে দেশের শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত ৮৮টি কোম্পানিতে বিদেশীদের মোট পোর্টফোলিও বিনিয়োগ ছিল (বাজারদরে) ৯ হাজার ১৩২ কোটি টাকা। গত নভেম্বর শেষে ১১৪টি কোম্পানিতে বিদেশীদের মোট বিনিয়োগ বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৬ হাজার ৩৩৬ কোটি টাকায়। অর্থাত্ ১১ মাসে বাজারমূল্যে বিদেশীদের পোর্টফোলিও বিনিয়োগ বেড়েছে ৭ হাজার ২৩১ কোটি টাকা বা প্রায় ৭২ শতাংশ। ডিএসইতে প্রকাশিত বিভিন্ন কোম্পানিতে বিদেশীদের শেয়ারধারণের উপাত্ত থেকে এ বিশ্লেষণ করেছে লংকাবাংলা সিকিউরিটিজের গবেষণা বিভাগ।

এ প্রসঙ্গে ডিএসইর পরিচালক শাকিল রিজভী বণিক বার্তাকে বলেন, শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত কোম্পানিগুলোয় বিদেশী বিনিয়োগকারীদের আগ্রহ বাড়ছে। বিদেশী বিনিয়োগকারীদের লেনদেনেও নতুন রেকর্ড দেখা যাচ্ছে। দেশের স্থিতিশীল রাজনৈতিক পরিস্থিতি, অর্থনৈতিক চিত্র, শেয়ারবাজারের কাঠামোগত সংস্কারের কারণেই আমাদের বাজারের প্রতি তাদের আস্থা ও আগ্রহ বাড়ছে। তবে প্রতিবেশী অন্যান্য দেশের সঙ্গে তুলনা করলে বলা যায়, আমাদের শেয়ারবাজারে বিদেশী বিনিয়োগকারীদের অংশগ্রহণ আরো অনেক গুণ বাড়ানো সম্ভব।

তথ্য পর্যালোচনায় দেখা যায়, ২০১৬ সালের নভেম্বর শেষে মোট ১১৪টি কোম্পানিতে বিদেশীদের পোর্টফোলিও বিনিয়োগ থাকলেও শীর্ষ ১০ কোম্পানিতেই কেন্দ্রীভূত ছিল তাদের মোট বিনিয়োগের ৮৭ শতাংশ। শীর্ষ ২০ কোম্পানির ক্ষেত্রে এ হার ছিল ৯৪ শতাংশ।

খাতভিত্তিক হিসাব করলে দেখা যায়, বিদেশীদের সবচেয়ে বেশি বিনিয়োগ ওষুধ ও রসায়ন খাতে। নভেম্বর শেষে এ খাতে বিদেশীদের মোট পোর্টফোলিও বিনিয়োগের পরিমাণ ছিল ৫ হাজার ৫১১ কোটি টাকা। বিদেশীদের পোর্টফোলিও বিনিয়োগের শীর্ষ ছয় কোম্পানির মধ্যে তিনটিই এ খাতের বড় মূলধনি কোম্পানি; স্কয়ার, বেক্সিমকো ও রেনাটা ফার্মাসিউটিক্যালস। সর্বশেষ বছরে রেনাটার শেয়ারে বিদেশীদের অংশ অপরিবর্তিত থাকলেও বেড়েছে বেক্সিমকো ও স্কয়ার ফার্মায়। এক বছরের ব্যবধানে ২০১৬ সাল শেষে স্কয়ার ফার্মায় বিদেশী পোর্টফোলিও বিনিয়োগকারীদের শেয়ার ১৫ দশমিক ৩৯ থেকে বেড়ে ১৬ দশমিক ২৬ শতাংশে উন্নীত হয়েছে। বেক্সিমকো ফার্মায় তা ৩৬ দশমিক ৩৩ থেকে ৩৮ দশমিক ৩১ শতাংশে উন্নীত হয়েছে। অন্যদিকে বিদেশীদের পোর্টফোলিওতে ২১ দশমিক ৭৮ শতাংশ শেয়ার নিয়ে অপরিবর্তিত রয়েছে রেনাটার অবস্থান।

শেয়ারবাজারে বিদেশীদের পোর্টফোলিও বিনিয়োগ বিচার করলে ২০১৬ সালে বিনিয়োগ সবচেয়ে বেশি বেড়েছে বেসরকারি বাণিজ্যিক ব্যাংক ব্র্যাকে। ৩০ নভেম্বর ব্যাংকিং খাতে বিদেশীদের মোট বিনিয়োগের ৭০ শতাংশই ছিল এ ব্যাংকের শেয়ারে। ২০১৬ সালে এ ব্যাংকে বিদেশী পোর্টফোলিও বিনিয়োগ ১৭ দশমিক ৮৭ শতাংশ বেড়েছে। বর্তমানে ব্যাংকটির মোট শেয়ারের ৪২ দশমিক ১৫ শতাংশ বিদেশীদের হাতে। এর বাইরে এক বছরের ব্যবধানে দ্য সিটি ব্যাংকে বিদেশী পোর্টফোলিও বিনিয়োগকারীদের শেয়ার ২ দশমিক ৬৬ থেকে ৬ দশমিক ১০ শতাংশ উন্নীত হয়েছে।

অন্যদিকে বিদেশী বিনিয়োগকারীরা গেল বছর নতুন করে যুক্ত হয়েছে ড্যাফোডিল কম্পিউটার্সে। বর্তমানে এ কোম্পানির প্রায় ৩ শতাংশ শেয়ার বিদেশীদের হাতে।

২০১৬ সালে বিদেশীদের পোর্টফোলিও বিনিয়োগ বৃদ্ধি পাওয়া শীর্ষ ২০ কোম্পানির মধ্যে অলিম্পিক ইন্ডাস্ট্রিজে ৩৯ দশমিক শূন্য ৭ থেকে ৪২ দশমিক ৮৮ শতাংশ, ব্রিটিশ আমেরিকান টোব্যাকোয় ১৩ দশমিক ৯৫ থেকে ১৪ দশমিক ৪১ শতাংশ, গ্রামীণফোনে ২ দশমিক ১০ থেকে ২ দশমিক ৪০ শতাংশ, আইডিএলসি ফিন্যান্সে ২ দশমিক ২৩ থেকে ৪ দশমিক ২৫ শতাংশ, এমজেএল বিডিতে ১ দশমিক ৭০ থেকে ২ দশমিক ৬০ শতাংশ, সাউথইস্ট ব্যাংকে ৪ দশমিক ২৭ থেকে ৬ দশমিক ২৪ শতাংশ ও তিতাস গ্যাসে বিদেশীদের বিনিয়োগ অংশ ১ দশমিক ৬৭ শতাংশ থেকে বেড়ে ১ দশমিক ৭৮ শতাংশে উন্নীত হয়েছে।

এদিকে সার্বিকভাবে শেয়ারবাজারে বিদেশীদের অংশগ্রহণ বাড়লেও কোম্পানি হিসেবে পিছিয়ে পড়ছে বহুজাতিক প্রতিষ্ঠান বাটা সু কোম্পানি বাংলাদেশ লিমিটেড ও ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেড।

২০১৫ সালের ডিসেম্বর শেষে ইসলামী ব্যাংকে বিদেশীদের পোর্টফোলিও বিনিয়োগ ছিল ১১ দশমিক ১১ শতাংশ। গত ২৯ ডিসেম্বর তা ৬ দশমিক ৩৮ শতাংশে নেমে এসেছে।

অন্যদিকে বাটা সু কোম্পানিতে একই সময়ে বিদেশীদের শেয়ার ৯ দশমিক ৮৪ শতাংশ থেকে প্রায় ৪৬ শতাংশ কমে ৫ দশমিক ৩ শতাংশে নেমে আসে। এর বাইরে গেল বছর বিদেশীদের পোর্টফোলিও বিনিয়োগ কমেছে বিএসআরএম লিমিটেডে; ৩০ দশমিক ৫৮ থেকে ২৮ দশমিক ৫৮ শতাংশে, বেক্সিমকো লিমিটেডে ১০ দশমিক ২২ থেকে ৯ দশমিক ৭৯ শতাংশে, সামিট পাওয়ারে ৪ দশমিক ৪৪ থেকে ৩ দশমিক ৬৫ শতাংশে এবং স্কয়ার টেক্সটাইলে বিদেশীদের পোর্টফোলিও বিনিয়োগ ৬ দশমিক ৮৯ শতাংশ থেকে কিছুটা কমে ৬ দশমিক ৭৩ শতাংশে নেমে এসেছে।